মে 2, 2020

প্রথমে একনজরে গত সপ্তাহের ঘটনাবলি :

  • ইউরো/ইউএসডি। ম্যাক্রো ইন্ডিকেটররা বিশ্ব অর্থনীতির অবস্থার খুবই নিষ্প্রভ ছবি এঁকেছেন। যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায় ইউরোপের পরিস্থিতি বেশি খারাপ দেখাচ্ছে। পূর্ববর্তী ত্রৈমাসিকে ইউরোপীয় অর্থনীতি ইতিহাসে রেকর্ড নিম্ন হয়ে দাঁড়িয়েছিল 3.8% এবং গত বছর ধরে ছিল 14.4%, এর বিপরীতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই সংখ্যা হল 1.2% এবং 4.8%।
    গত সপ্তাহে, ইসিবি এবং ফেড উভয়েই বৈঠক করেছে। তাদের ফলাফলের ভিত্তিতে বিবৃতিতে থেকে এই উপসংহারে আসা যায় যে উভয় নিয়ামকই সংকট আরও তীব্র হবে এনিয়ে খুবই শঙ্কিত, কিন্তু ইউরোপিয়ান সতীর্থের তুলনায় ফেড দ্রুত ঘুরে দাঁড়াচ্ছে এবং অর্থনীতিকে সাহায্যের জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ করছে।
    বণ্টনের ক্ষেত্রে, মার্চের শুরু থেকে ইসিবি-র ব্যালান্স শিট উঠেছিল 645  বিলিয়ন পাউন্ড, যেখানে ফেড-এর ব্যালান্স শিট উঠেছিল 2.3 ট্রিলিয়ন ডলার। দীর্ঘ-মেয়াদি ধারের কর্মসূচি এলটিআরও-র জন্য ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংক হার কমিয়েছে -0.5% থেকে -1%-এ এবং লক্ষ্যহীন আর্থিক কর্মসূচি পেলট্রো-র প্রবর্তন ঘোষণা করেছে -0.25%-এ, কিন্তু প্রধান সুদের হার অপরিবর্তিতই আছে 0%। এই সঙ্গে, বিনিয়োগকাররী আশা করছেন ইসিবি সিদ্ধান্ত নেবে ‘ফলেন এঞ্জেলস’-এর বন্ড ক্রয়ের – সিকিউরিটি যার বিনিয়োগ হার ‘জাঙ্ক’-এ চলে যাবার আশঙ্কা বিশ্বব্যাপী অতিমারীর করণে। কিন্তু এটা ঘটেনি।
    যদিও, ইউএস ফেডারেল রিজার্ভও তাদের সুদের হার অপরিবর্তিত রেখেছে, যা ডলারকে থাকতে দিয়েছে চার-সপ্তাহ আড়াআড়ি করিডোরে 1.0750-1.1000। 1.1018 উচ্চতায় পৌঁছনোর পর এই জোড়াটি সামান্য সংশোধনের মধ্য দিয়ে গিয়েছিল এবং পাঁচ-দিনের পর্ব শেষ করে 1.0980-এ।
  • জিবিপি/ইউএসডি। সাধারণভাবে, এই জোড়ার এই সপ্তাহের ডায়নামিক্স উদ্ধৃতি ইউরো/মার্কিন ডলারের পুনরাবৃত্তি. যদিও বৃহস্পতিবার 30 এপ্রিল দ্রুত উত্থানের পর সংশোধন তাৎপর্যপূর্ণভাবে শক্তিশালী।
    পাউন্ডের সাপ্তাহান্তিক সেল-অফ প্রাথমিকভাবে অবনমিত হয়েছিল যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির ক্রমহ্রাসমান প্রেক্ষিতের কারণে। বিশাল সংখ্যাক সংস্থার শাটডাউনের ফলে নির্মাণশিল্পের পিএমআই রেকর্ড অবনমিত হয় 32.6, যা এর ক্রিটিক্যাল ভ্যালু 50.0-র অনেক কম।
    এর ফলে, সোমবার 1.2365 স্তর থেকে শুরু করে শুক্রবারে পাউন্ড শেষ করে 1.2500-এর শক্তিশালী সমর্থন প্রতিরোধক অঞ্চলে, গোটা সপ্তাহে ডলারের কাছে হারিয়েছে 135 পয়েন্ট।
  • ইউএসডি/জেপিওয়াই। কোভিড-19 অতিমারির ফলে ভয়ংকর অবস্থার ফলে এই জোড়ার আন্তঃসম্পর্ক S&P500 ও নিক্কেই225 সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে ছিল সত্যিই নজর করার মতো।
    যেমন প্রত্যাশিত, বিশেষজ্ঞদের অধিকাংশ (55%)-কে সমর্থন করেছেন H4 ও D1-এ ইন্ডিকেটরদের বিশাল অংশ (75-100%), গত সপ্তাহ শুরু হয়েছিল আরেকটি বিয়ার আক্রমণ দিয়ে, যা ছিল 107.00, এটা ছিল ইয়েনের জন্য বহু মাস এবং এমনকি বহু বছরের জন্য তাৎপর্যপূর্ণ স্তর। মনে হয়েছিল ব্রেকডাউন হবে এবং জোড়াটি এমনকি পৌঁছবে 106.35 দিগন্তে। কিন্তু বিয়ার এই সাফল্যের জন্য জমাট বাঁধতে পারেনি। ইউ এস এক্সচেঞ্জ এপ্রিলের শেষ বাণিজ্য দিনটি শেষ করে বিশাল অবনমনে। S&P500-র জন্য ভবিষ্যৎ প্রায় 3.0% হারিয়েছে, যেখানে জাপানের নিক্কেই 225 ফিরে গেছে 8-সপ্তাহব্যাপী উচ্চতা থেকে। বিপরীত আত্মঃসম্পর্ক নিয়মের পর, ইউএসডি/জেপিওয়াই জোড়া উত্তরে মোড় নেয় এবং ফিরে আসে সোমবার যেখান থেকে শুরু করেছিল - 107.40-107.50 অঞ্চলে। 1 মে, শুক্রবার বিয়ার আরেকটি চেষ্টা করেছিল 107.00 -এর স্তর ভাঙতে, এর ফলে জোড়াটি বাণিজ্য সেশন শেষ করে সামান্য নীচে - 106.85-এ।
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। বিটকয়েন নেটওয়ার্কের অর্ধেক আরও বেশি কাছে আসছে। এই ঘটনায় ঢাকা পড়ে গেছে এমনকি করোনা ভাইরাস অতিমারির সঙ্গে ক্রিপ্টো-বিশ্লেষণ এবং ক্রিপ্টো-ট্রেডারদের সম্পর্কে যা ঘটেছে। অপেক্ষা বেশি দীর্ঘ নয়, 12 মে-র ভেতরে সবকিছু ঘটা উচিত। কেননা অধিকাংশ বিশেষজ্ঞ (65%) অনুমান করছেন, মূল কারেন্সি হাভিঙের সঙ্গে তাল মিলিয়ে উঠে দাঁড়াবে, সমগ্র ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারের সঙ্গে টানবে। যদি 24 এপ্রিল বিটিসি/ইউএসডি জোড়া থাকত 7,400 ডলার স্তরে, ইতিমধ্যে 30 এপ্রিল এটা ছিল 9400 ডলার উচ্চতার কাছে, 5 দিনে অর্জন করেছিল 27%। বিটকয়েনধারীদের অ্যাকাউন্টে কয়েনের সংখ্যা ছিল 0.1 যা পৌঁছেছিল রেকর্ড স্তরে, 3 মিলিয়ন পার করে।
    যদিও বুলস-আশাবাদী ছাড়া, অবশ্যই, বাজারে বিয়ারও ছিল, আশাবাদী, যাদের বিশ্বাস বিটকয়েনের বর্তমান বাজার দরের সঙ্গে ইতিমধ্যে রয়েছে হাভিং, এবং সেজন্য এর বিস্ফোরক বিকাশের মোটেও কোনো কারণ নেই। এই মতামত শোনা গিয়েছিল গত সপ্তাহের শেষদিকে, যখন অনেক ট্রেডার ও মাইনার লাভ গ্রহণ করতে শুরু করে, 30 এপ্রিলে বিটিস কোট কমে যায় 8400 ডলারে।
    এরপর বিটকয়েন ফের উঠতে শুরু করে এবং শুক্রবার 1 মে সন্ধ্যাবেলায় এটি গিয়ে দাঁড়ায় 8700-9000 ডলার অঞ্চলে। সপ্তাহের শেষে ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারের মোট ক্যাপিটালাইজেশন ছিল 247 বিলিয়ন ডলার (সপ্তাহ প্রতি 15%), এবং ক্রিপ্টো ফিয়ার ও গ্রিড ইনডেক্স 20 থেকে দ্বিগুণ হয়ে 40 হয়, অবশেষে রেড জোন-কে ভয় থেকে বাঁচায় এবং নিরপেক্ষ মানে পৌঁছয়।
    এরকম শীর্ষস্থানীয় অল্টকয়েনের জন্য যেমন ইথেরিয়াম (ইটিএইচ/ইউএসডি), রিপল (এক্সআরপি/ইউএসডি) ও লাইটকয়েন (এলটিসি/ইউএসডি), এগুলি খুব বাধ্যভাবে ক্রিপ্টোকারেন্সির ডায়নামিক্স পুনরাবৃত্তি করেছিল স্বাধীন কোনো গতিবিধি ছাড়াই।

 

আগামী সপ্তাহের অনুমানের ক্ষেত্রে, বেশকিছু সংখ্যক বিশেষজ্ঞের মতামতের সংক্ষেপের পাশাপাশি টেকনিক্যাল ও গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে আমরা বলতে পারি :

  • ইউরো/ইউএসডি। অর্থনৈতিক সংকট সত্ত্বেও, জিডিপি পড়ছে এবং বেকারত্ব বাড়ছে। সামগ্রিকভাবে এপ্রিল ছিল মেইন স্টক ইনডাইসের জন্য খুবই সফল – বিনিয়োগকারীরা বিশালভাবে সম্পত্তি ফিরিয়ে নিয়েছেন যা মার্চের পতন চলাকালীন খুব দ্রুত পড়ে গিয়েছিল। ইউরো/ইউএসডি-র ক্ষেত্রে, ইউরোপিয়ান কারেন্সি, সামান্য অসুবিধা সহ, ডলারের পাশাপাশি থাকতে পেরেছে। যদিও বিয়ার ধারাবাহিকভাবে ইউরোকে চাপ দিয়েছে সাইড চ্যানেল 1.0750-1.1000-এর নিম্ন সীমায় থাকতে, জোড়াটি এপ্রিল মাস শেষ করে যেখানে তারা ছিল 1 এপ্রিলে – এর সীমা 1.1000-এর কাছে। এখন, ইউরোপিয়ান কারেন্সি চাপ সামলাতে সক্ষম হওয়ায় ইসিবি-র উচিত এর পদক্ষেপগুলি খুব তীব্র করা। যদিও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের নেতারা আসন্ন সহায়তা কর্মসূচিতে অনুদান বা ঋণ কীভাবে প্রয়োগ করা হবে সেবিষয়ে একমত হতে পারেননি। এই শ্লথতা বাজারের প্রত্যাশাকে ফের শক্তি জুগিয়েছে যদিও এই বছরে ইউরোপিয়ান জিডিপি কমার সম্ভাব্যতা 12%।
    এখন যে সপ্তাহটি সামনে। এই অনুমান লেখার সময়, ইন্ডিকেটরদের বেশি অংশের রং সবুজ। যদিও H4 ও D1-এ অসিলেটরদের 15% ইতিমধ্যে সংকেত দিয়েছেন এই জোড়াটির অতিরিক্ত ক্রয় সম্পর্কে, যা ইঙ্গিত দেয় এটি 1.0750-1.1000 চ্যানেলের কেন্দ্রে ফিরে আসতে পারে, যাতে ইতিমধ্যেই 65% বিশ্লেষক সম্মতি দিয়েছেন। লক্ষ্য হল 1.0900 এবং 1.0750। যদি ঊর্ধ্বগতি বজায় থাকে, জোড়াটি 1.1100-এর রেজিস্ট্যান্সের মধ্য দিয়ে ভাঙার চেষ্টা করবে এবং পৌঁছবে 1.1240 উচ্চতায়।
    আসন্ন সপ্তাহের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার মধ্যে এটি হয়তো প্রভাব ফেলতে পারে স্থানীয় বাজারের গঠনে, আপনার উচিত ব্যবসায় কার্যকলাপের তথ্য প্রকাশে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম বাজারে মনোযোগ দেওয়া 5, 6 মে-তে এবং বিশেষ করে শুক্রবার 8 মে-তে। এপ্রিলের বেকারির হারের অনুমন ছিল মার্চের চেয়ে 10% নীচে (14% বনাম 4%), এবং এনএফপি (কৃষিক্ষেত্রের বাইরে নতুন কাজের সংখ্যা) পতন ঘটেছে -701 থেকে -20000-এ। এগুলি সবই ডলারের বিপরীতে কাজ করবে, যদিও যা সচরাচর ঘটে, এসব নেতিবাচক অনুমান বাজার আগেই বিবেচনায় রাখতে পারে।
  • জিবিপি/ইউএসডি। এই জোড়াটির ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ইন্ডিকেটরদের থেকে কোনো নির্দিষ্ট সংকেত পাওয়া যায়নি, যদিও লালের ওপর সামান্য সুবিধায় আছে সবুজ। সবুজকে সমর্থন করছে D1-এ গ্রাফিক্যাল বিশ্লেষণ, যা অনুযায়ী আগামী 1-2 সপ্তাহে পৌঁছবে 1.2865 উচ্চতায়, এবং তারপর আরও 100 পয়েন্ট উঁচুতে। নিকটতম লক্ষ্য হল 1.2650 এবং 1.2725। সাপোর্ট রয়েছে 1.2245, 1.2165 এবং 1.1965 স্তরে।
    এই জোড়াটির জন্য বিশেষজ্ঞদের অনুমানও নিরপেক্ষ। তাদের এক-তৃতীয়াংশ এর বিকাশের পক্ষে, এক-তৃতীয়াংশ পতনের পক্ষে এবং বাকি এক-তৃতীয়াংশ সাইডওয়ে প্রবণতার দিকে। কিন্তু যখন সাপ্তাহিক থেকে মাসিক অনুমানে যাওয়া হয়, তাঁদের অধিকাংশই (60%) আশা করেন ব্রিটিশ কারেন্সি দুর্বল হবে এবং জোড়াটির পতন ঘটবে।
    মার্কিন অর্থীতির ক্রমহ্রাসমান অবস্থার সঙ্গে যোগ হয়েছে পাউন্ডের ওপর চাপ যা ঘটেছে ব্রেক্সিট নিয়ে অনিশ্চয়তার ফলে, বলছেন বিশ্লেষকরা। ইউরোপিয়ান ছাড়ার ব্যাপারে বোঝাপড়া ফের মতানৈক্যে পৌঁছেছে এবং ইউরোর প্রধান সমঝোতাকারী মাইকেন বার্নিয়ার বলেছেন যে বহু মৌলিক বিষয়ে গ্রেট ব্রিটেন কোনো আপসে যেতে নারাজ। উপরন্তু, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অংশের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার ব্যাপারে কোনো বিলম্বে রাজি নয় ব্রিটেন, যার ফলে শক্তিশালী ব্রেক্সিটের সম্ভাব্যতা ফের একবার দিগন্তে মিলিয়ে গেছে।
    আসন্ন সপ্তাহের নজর দেওয়া উচিত বৃহস্পিতবার 7 মে-তে, যখন ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের বৈঠক হবে। সুদের হার সম্ভবত অপরিবর্তিত থাকবে, 0.1%। সুতরাং ব্যাংকের মানিটারি পলিসি রিপোর্ট হবে বিনিয়োগকারীদের জন্য নির্দিষ্ট সুদের। এবং এখানে কিছু অপ্রত্যাশিত সম্ভব হতে পারে। দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ব্রিটিশ অর্থনীতির অবনমন সম্ভবত 8% অতিক্রম করবে, রেগুলেটর যেতে পারেন পরিমাণগত সহজতা কর্মসূচির সম্প্রসারণে, যার আয়তন বর্তমানে দাঁড়িয়েছে 645 বিলিয়ন পাউন্ড।
  • ইউএসডি/জেপিওয়াই। এই মুহূর্তে, এই জোড়ার জন্য বিশ্লেষকদের অনুমান সেই জিবিপি/ইউএসডি-র মতো একই – যখন নিরপেক্ষ সাপ্তাহিক থেকে মাসিকে যায়, পতনোন্মুখ ইয়েনে এবং উর্ধ্বগতির ডলারের সমর্থকদের সংখ্যা হয় 70%। D1-এ ইন্ডিকেটররা বিশেষজ্ঞদের মতামতে তীব্র অসম্মতি জানিয়েছেন : অসিলেটরদের 75% এবং ট্রেন্ড ইন্ডিকেটরদের 100% ইঙ্গিত দিয়েছেন নিম্নগতির ধারাবাহিকতা যা শুরু হয়েছিল 25 মার্চ এবং জোড়াটি জমাট বেঁধেছিল 107.00-র প্রধান স্তরের নীচে। সাপোর্ট স্তর হল 10.6.35 এবং 105.00, এবং রেজিস্ট্যান্স স্তর হল 108.00, 108.50 এবং 109.40।

  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। প্রথমে, গুরু ও ক্রিপ্টোস্ফিয়ার আশাবাদীদের প্রথাগত মাঝারি ও দীর্ঘমেয়াদি অনুমান। সেজন্য, কয়েনকর্নার এক্সচেঞ্জের প্রধান ড্যানি স্কট বলেছেন যে করোনা ভাইরাস অতিমারির প্রেক্ষাপটের বিপরীতে আর্থিক সংকটের ফলে আরও বেশি বিনিয়োগকারীকে ঠেল দিচ্ছে বিটকয়েনের দিকে। ‘যদি পরিস্থিতি ফিয়াটের সঙ্গে থাকে, স্টক মার্কেট ও অয়েল থিতু হয় না, আপনারা আশা করতে পারেন কয়েন হবে 20000 ডলার বা হাভিঙের পর তার চেয়ে বেশি। ফিয়াট টাকা যা এমনকি সাধারণ নাগরিকরাও পান সাপোর্টের অংশ হিসেবে, সেটি ক্রিপ্টোকারেন্সিতে রূপান্তর করা যায়। মানুষের ভয় শুরু হয়েছে যে ডলার স্থায়িত্ব হারাবে এবং যার গতিময়তা ন্যূনতম সেরকম সম্পদ দখলে রাখবে।’
    প্রেস্টন পিশ-এর পরামর্শদাতা ওয়ারেন বুফেও বিটকয়েন নিয়ে আশাবাদী, তাঁর বিশ্বাস যে বিটিসি-র মূল্য পৌঁছবে ২০০-৩০০ হাজার ডলারে। তাঁর অবস্থান মৌলিক নীতির ভিত্তেত, যা আরও একবার হাভিং এবং বাজারে আনুষঙ্গিক জোগানের অভাবকে অন্তর্ভুক্ত করেছে। এর পাশাপাশি, বিখ্যাত বিনিয়োগকারী তথা বিলিয়নিয়ার ওয়ারেন বুফের একেবারে বিপরীতে পিশ-এর অবস্থান, বুফে হলেন ক্রিপ্টোকারেন্সির একেবারে বিরোধী এবং বিশেষ করে বিটকয়েনের।
    ভেঞ্চার পুঁজিপতি টিম ড্র্যাপার অবশ্য পিশ-এর সঙ্গে একমত, তিনি বারবার বলেছেন যে মার্চ 2022 অথবা 2023-এর শুরুতে বিটিসি পৌঁছবে 250000 ডলারে। তিনি আরও একবার এই অনুমান ভার্চুয়াল ব্লকচেইন উইক-এ নিশ্চিত করেছেন, বলেছেন যে প্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সির বিকাশের অন্যতম একটি অনুঘটক ব্যবহৃত হবে এই বাণিজ্য লেনদেনে। তাঁর মতে, অর্থনীতির এই ক্ষেত্রের প্রতিনিধিরা বিটকয়েন এবং লেনদেনের সস্তার সুযোগকে প্রশংসা না করে পারবেন না। ড্র্যাপারের সঙ্গে তর্ক করা কঠিন, বিশেষ করে এটা যখন জানা গেছে যে 22 এপ্রিল বিটিসি ট্রান্সফারের কমিশন ছিল 367 মিলিয়ন ডলার যা মাত্র 63 সেন্ট-এ এসেছে।
    সাধারণভাবে, আশা বজায় রেখে, কিছু বিশেষজ্ঞের ভয় যে হাভিঙের পর, 12.5 বিটিসি থেকে 6.25 বিটিসি পর্যন্ত মাইন ব্লকের জন্য রিওয়ার্ড হ্রাস পেয়েছে, একমাত্র সবচেয়ে দক্ষ মাইনাররা যাদের নতুন সরঞ্জাম ও অ্যাকসেস আছে ইলেকট্রিসিটির একমাত্র তারাই এই শিল্পে টিকে থাকবে। এরকম জমাটভাব ক্রিপ্টোকারেন্সি ইকোসিস্টেমে বিঘ্ন ঘটাতে পারে, যা চলবে মাইনিঙের বিকেন্দ্রীকরণে বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতিকে কাউন্টার করতে। যদিও বিটকয়েনের খরচের সম্ভাব্য বৃদ্ধি এবং এনার্জি মূল্যের পতন যা বর্তমান সংকট দ্বারা য়েছে সেটা ছোট ক্রিপ্টো ফার্মকে আশার আলো দেবে টিকে থাকার, লাভযোগ্যতা বজায় রেখে।
    এবং এখন আগামী সপ্তাহের জন্য ভবিষ্যদ্বাণী, যা আশ্চর্যের, বিশ্লেষকদের অর্ধেকের বেশি (55%) অনুমান করছেন বিকাশ নয়, বরং বিটিসি ইউএসডি জোড়ার পতন ঘটবে 7,700-8,000 অঞ্চলে। আরও 20% অনুমান এর গতিবিধি থাকবে 9000 ডলারের দিগন্তে এবং মাত্র 25% আশা করেন যে বিটকেয়ন কোট 10000 ডলারের স্তরে রেজিস্ট্যান্স ভেঙে দেবে।

 

নর্ডএফএক্স অ্যানালিটিক্যাল গ্রুপ

 

বিজ্ঞপ্তি : এসব তথ্য আর্থিক বাজারে কাজের জন্য বিনিয়োগ বা পরামর্শ হিসেবে কোনো সুপারিশ নয় : এগুলি একমাত্র তথ্যমূলক উদ্দেশ্যে। আর্থিক বাজারে ট্রেডিং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ এবং এর ফলে ডিপোজিটকৃত ফান্ডের পরিপূর্ণ ক্ষতি হতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)