মার্চ 7, 2020

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD মনে হচ্ছে এখন সময় এসেছে, কেউ চাইলে ম্যাক্রোইকনমির সূচকগুলিকে সে উপেক্ষা করতে পারে, অতীতে যেগুলির একটা প্রভাব শুধু দরগুলির উপরেই থাকত না, বরং সেগুলি প্রবণতাকে 180 ডিগ্রি ঘুরিয়েও দিতে পারত। বহু সপ্তাহ ধরেই এখন করোনা ভাইরাস আর্থিক বাজারের সামগ্রিক পরিস্থিতির পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে, যে ভাইরাস এখন শুধু লোকেদের স্বাস্থ্যের উপরেই নয়, বরং বিভিন্ন সরকারগুলো এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর পদক্ষেপের উপরেও প্রভাব বিস্তার করে রয়েছে।
    বিশ্বের প্রায় সমস্ত নিয়ামক সংস্থাগুলিই সুদের হার বিপুল পরিমাণে কমিয়ে দিচ্ছে। এই বোমা বিস্ফোরণের প্রভাব তৈরি হয় মার্কিন ফেডেলার রিজার্ভের নেওয়া একটি সিদ্ধান্ত থেকে, যা তারা একটি জরুরি বৈঠকের মাধ্যমে নেয়, যে বৈঠক 2008 সালের সংকটের পর থেকে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হল, এবং যেখানে বুনিয়াদি সুদের হারকে 1.75% থেকে কমিয়ে 1.25% অবধি নামিয়ে আনা হল। এই সিদ্ধান্তের পিছনে ছিল G7 গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির অর্থমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলির সঙ্গে সঙ্গে করোনা ভাইরাস Covid-19-র সঙ্গে যুক্ত পরিস্থিতিতে দেশগুলির আর্থিক নীতি নিয়ে করা একটি টেলিকনফারেন্স।
    যুদ্ধে থেকে আসলে আপনি যুদ্ধের হয়ে যান, আর যুদ্ধক্ষেত্রে শান্তির গীত এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে এখনও প্রত্যাশা করা যাচ্ছে না। মূল মুদ্রা জুটির অস্থিরতার ব্যাপকতা সেই সব কারবারি কৌশলগুলিকে ভেঙ্গে চুড়মার করে দিয়েছে যেগুলি একটা স্থির ও শান্ত পরিবেশে 2019-এ তৈরি করা হয়েছিল। গত সপ্তাহে DXY ডলারের সূচক 1.7% পড়েছে, যেখানে মাত্র সপ্তাহ দুয়েক আগেই এটা তার 3-বছরের সর্বোচ্চ অবস্থানে ছিল।
    01লা জানুয়ারী থেকে শুরু করে 20শে ফেব্রুয়ারী, 2020-র মধ্যে ইউরো-র সাপেক্ষে ডলার 450 পয়েন্ট ওঠে, যেটা বেশ অসাধারণ একটা অঙ্ক। কিন্তু সম্মুখে ও উর্ধ্বমুখে: সম্পূর্ণ বিপরীত দিকে একটা মোড় নিয়ে EUR/USD জুটি গত মাত্র দু’সপ্তাহেই 640 পয়েন্ট উঠেছে! আর এই সমস্ত লাফগুলি, উপর ও নিচ দু’দিকেই, কোন বড়সড় সংশোধন না করেই ঘটেছে, প্রথম সেটা ছিল উর্ধ্বমুখী (বুল) আর এখন সেটা নিম্নমুখী (বিয়ার)। একটি একক দিনের দৈনিক "ক্যান্ডেল" গত 06ই মার্চ, শুক্রবার ছিল 140 পয়েন্টের বেশি।
    গত সপ্তাহে সাধারণভাবে আমাদের বিশেষজ্ঞদের বেশিরভাগ (60%) যে পূর্বাভাস দিয়েছিল, এবং যাকে প্রবণতা সূচকগুলির 70% সমর্থন করেছিল, তা খেয়াল রাখা উচিৎ। নতুন বছরের সর্বোচ্চ স্থান ছিল 1.1240 যেখানে এই জুটি উঠবে বলে প্রত্যাশা করা হয়েছিল। যদিও, কারবারি পর্বের শেষ দিনে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের 10-বছর মেয়াদি বন্ডে 18%-এর পতনের পটভূমিতে, এই জুটি এই প্রতিরোধকে ভেঙ্গে দিয়েছিল, 1.1355-এ উঠে, এবং এটি তার পাঁচ দিনের সময়কাল 1.1300-এ এসে শেষ করে;
  • GBP/USD বিস্ময়করভাবে, বাস্তব ঘটনা হল: সাধারণভাবে সারা বিশ্বে যা-ই ঘটে চলুক না কেন, আর বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, GBP/USD জুটি পরপর পাঁচ মাস ধরে বারে বারে তাদের আদর্শ অবলম্বন/প্রতিরোধের অঞ্চল 1.3000-এ ফিরে গেছে। গত সপ্তাহেও তার ব্যতিক্রম হয়নি: স্থানীয় নিম্নস্তর 1.2735 দেখে নেবার পর, এই জুটি প্রায় 300 পয়েন্ট উপরে ওঠে এবং 1.3030-এ গিয়ে শেষ করে। এটা আমাদের বেশিরভাগ (65%) বিশেষজ্ঞদের দেওয়া পূর্বাভাসকে পুরোপুরি প্রামাণ্যতা দান করেছিল, যারা এই জুটির 1.3000-1.3070-র অঞ্চলে ফিরে যাবার পূর্বাভাস দিয়েছিলেন;
  • USD/JPY ডলারের উত্থান এবং হেটিং মুদ্রাগুলির ক্রমবর্ধমান চাহিদা ইয়েন-কে দু’সপ্তাহে 720 পয়েন্টের এক অসাধারণ বৃদ্ধি দেখার সুযোগ করে দেয়, অর্থাৎ 6.4%। তবে, বিশ্লেষকদের পূর্বাভাসগুলো তার থেকে বেশি সাহসী ছিল। তাদের প্রত্যাশা ছিল, যাকে করোনা ভাইরাস সমর্থন করেছিল, এই জুটি এক-এক করে 107.50, 106.65, 105.65-র অবলম্বনগুলোকে ভেঙ্গে বেরিয়ে যাবে এবং 104.45-র দিকে এগিয়ে যাবে যা 2019 সালের আগস্ট মাসের সর্বনিম্ন স্তর ছিল। বস্তুত, অবলম্বনগুলো ভেঙ্গেছিল, যদিও, এই জুটি তাদের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়: স্থানীয় নিম্নস্তর যা গত 06ই মার্চ, শুক্রবার রেকর্ড করা হয় তা ছিল 104.98, এবং অন্তিম বিন্দুটা ছিল 105.35;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি গত সপ্তাহের পর্যালোচনায় আমরা সন্দেহ প্রকাশ করেছিলাম, বিটকয়েন আসলে ইউরো-র মত, বা এমনকি আরও বেশি করে, ইয়েন-এর মত, হেজিং সম্পদ হয়ে উঠতে পেরেছে কিনা সে ব্যাপারে, যেমনটি বহু ক্রিপ্টোগুরুই সকলের কাছে প্রমাণ করা চেষ্টা করেছেন। যেমনটা প্রতিপন্ন হল, আমরা একাই ছিলাম না যারা এমন সন্দেহ করছিল। ধনকুবের, প্রাক্তন Wall Street ব্যাংকার এবং বিটকয়েন-প্রেমী মাইকেল নোভোগ্রাৎজ এটা দেখে বিস্মিত হয়েছিলেন যে, বিটকয়েনের দর ফেব্রুয়ারী মাসের শেষ দশদিনে ডলার এবং শেয়ার সূচকগুলো যে গতিতে পড়ছিল সেই গতিতে পড়ে চলেছে। "BTC যেভাবে একটা হেজিং সম্পদ হওয়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলল এবং উচ্চ-ঝুঁকিসম্পন্ন সিকিউরিটি হিসেবে তার কেনাবেচা হতে লাগল?  ট্যুইটারে নোভোগ্রাৎজ দাবি করেছেন। "সেটা ব্যথিত করে!""। সেই সঙ্গে, যে সব কারবারিরা শেয়ার বাজারে লোকসান করেছিলেন, তারা তাদের লোকসান পুষিয়ে নেবার জন্য বিটকয়েনের সংখ্যা কমাতে শুরু করেন, এবং ক্রমান্বয়ে তা বিটকয়েনের দরকে নামিয়ে আনে।
    পক্ষপাতহীনভাবে, এটি লক্ষ্য করতে হবে যে, গত সপ্তাহে আলোচ্য ক্রিপ্টোকারেন্সি তার সুনাম ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেছিল। তবে, তা ব্যর্থ হয়: গত দু’সপ্তাহ ধরে দর $2,000-এরও বেশি হারিয়ে, এটি মাত্র $730 ফিরিয়ে আনতে পেরেছিল। ইউরো আর ইয়েন-এর বিস্ফোরক বৃদ্ধির পটভূমিতে এই বৃদ্ধিকে বেশ ক্ষীণই দেখাচ্ছিল। তাই বিটকয়েনকে এক্ষুণি সত্যিকারের রক্ষাকারী সম্পদ বলে দেওয়াটা হয়ত খুব তাড়াহুড়ো করা হয়ে যাবে।
    ইথিরিয়াম (ETH/USD), লিটকয়েন (LTC/USD) এবং রিপল (XRP/USD) ইত্যাদির মতো সমগোত্রীয় শীর্ষস্থানীয় অল্টকয়েনগুলোর ক্ষেত্রে, তারা চিরাচরিতভাবে BTC/USD জুটিরই পদাঙ্ক অনুসরণ করে। গত সপ্তাহে ক্রিপ্টো-বাজারের মোট মূলধনের পরিমাণ প্রায় অপরিবর্তিতই থেকেছে: $256 বিলিয়নের স্তরে, বিটকয়েন ক্রিপ্টো ফিয়ার অ্যান্ড গ্রিড সূচক প্রায় একই জায়গায় থমকেই থেকেছে: 40 থেকে 39-এ নেমে আসাকে কোন ধর্তব্যের মধ্যে না ধরাই ভাল।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশেষজ্ঞদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD H4 এবং D1-এর উপরকার প্রবণতার সূচকগুলোর 100%-এর রং সবুজ। কিন্তু D1-এর উপরকার 25% অসিলেটর এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে, যা প্রবণতা ঘুরে গিয়ে নিচের দিকে যাবার বা বড় রকমের সংশোধনের একটা শক্তিশালী সংকেত। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণও নিচের দিকেই দেখাচ্ছে। (যদিও, আপনাকে বলতেই হবে, করোনা ভাইরাস গতিমুখ বদল ও RSI, সম্ভাব্যতার সূত্র বা MACD রিডিংগুলোর প্রতি খুব কমই মনোযোগ দিয়েছে)।
    বুনিয়াদি বিশ্লেষকদের ক্ষেত্রে, তাদের কাছে এই মুহূর্তের পরিস্থিতিটা বেশ দ্ব্যর্থক। একদিকে, মার্কিন ফেডেরাল রিজার্ভের 18ই মার্চ তারিখের বৈঠকে আরেকবার সূদের হার কমানোর সম্ভাবনা প্রায় 100%-এর কাছাকাছি। অধিকন্তু, এই হ্রাসটা চক্রের পরবর্তী ধাপ হয়ে উঠতে পারে, যার ফলস্বরূপ, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকের শেষের দিকে, সুদের হার  0.5% বা এমনকি তার নিচের স্তরেও চলে যেতে পারে – প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, বেসরকারি ব্যাংকগুলোকে আরও নগদের জোগায় দিয়ে এবং আর্থিক নীতিগুলোকে যতটা সম্ভব সহজতর করে এনে সুদের হারকে 0% কমানোর জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।
    সুদের হারে পতন ডলারের বিরুদ্ধে যায়। আর তারপর, আরও একবার, 10-বছর মেয়াদি মার্কিন বন্ডগুলোতে আয় কমতে পারে। কিন্তু, অন্যদিকে, ইউরোপের পরিস্থিতি আরও খারাপ। প্রথমত, ইউরোজোন অর্থনীতি চীনা অর্থনীতির সঙ্গে খুব মজবুতভাবে সম্পর্কযুক্ত। আর দ্বিতীয়ত, ফেডেরাল রিজার্ভের যদি এখনও কৌশল খাটানোর সুযোগ থাকে এবং সুদের হারে আরও পতন ঘটে, তাহলে ECB-র হাতে প্রায় সেই সুযোগ নেই বললেই চলে। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ইউরো-তে জমার হার ইতিমধ্যেই লাল হয়ে গেছে এবং বর্তমানে তা রয়েছে -0.5%-এ।
    ECB-র এক প্রতিনিধি গত সপ্তাহে আগে থেকেই ঋণাত্মক হয়ে যাওয়া সুদের হারের থেকে আরও হ্রাসের সম্ভাবনার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে, ইউরোপের মহিরূহ-নিয়ামক সংস্থা তেমন কোন পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নেবে কিনা সে ব্যাপারে আগামি 12ই মার্চের বৈঠকেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।
    বিশ্লেষকদের পূর্বাভাসগুলোর ক্ষেত্রে, তাদের বেশিরভাগের মতে, করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্ভুত সমস্যার সুরাহ হলে গেলেই, আর্থিক বাজারগুলোর পরিস্থিতিও স্থিতিশীল হবে, এবং EUR/USD জুটি 1.1000-1.1100-এর পরিসরে ফিয়ে আসবে। বিশেষজ্ঞদের 60% সাপ্তাহিক পরিপ্রেক্ষিতে এবং 70% মাসিক পরিপ্রেক্ষিতে আর 80% মধ্য-মেয়াদি পরিপ্রেক্ষিতে এই ফলাফলের পক্ষে রায় দিয়েছেন। নিটকবর্তী শক্তিশালী অবলম্বনগুলো হল 1.1240 এবং 1.1175।
    বিশ্লেষকদের 40%-এর মতে আগামি সপ্তাহেও ডলারের পতন জারি থাকবে এবং এই জুটি 1.1450-1.1500-এর অঞ্চলে পৌঁছে যাবে;

  • GBP/USD এই জুটি আরও একবার তাদের মধ্যে-মেয়াদি পিভোট পয়েন্ট 1.3000-এর অঞ্চলে ফিরে গেছে। H4-এর উপর গ্রাফিক্স সহযোগে করা বিশ্লেষণ এই জুটির 1.2860-1.3070-এর পার্শ্ববর্তী চ্যানেলে যাবার ব্যাপারে ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, যেখানে D1-এর উপরকার সাপ্তাহিক অস্থিরতার পরিসর স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা প্রশস্ত রয়েছে: 1.2760-1.3170। কিন্তু উভয় ক্ষেত্রেই, এই জুটি কালক্রমে 1.3000-র হরাইজনে ফিরছে।
    প্রবণতার সূচকগুলোর 95% এবং দুই সময়সীমারই অসিলটরগুলোর 75% উত্তরমুখী, কিন্তু অসিলটরগুলোর 25% ইতিমধ্যেই মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের অঞ্চলে রয়েছে।
    পরের সপ্তাহের জন্য বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, কোন একটিকে এগিয়ে রাখা কারো পক্ষেই সম্ভব নয়- তাদের এক-তৃতীয়াংশ এই জুটির বৃদ্ধির পক্ষে, এক-তৃতীয়াংশ পতনের পক্ষে এবং বাকি এক-তৃতীয়াংশ পার্শ্ববর্তী চ্যানেলে যাবার পক্ষে মত দিয়েছেন। তবে, এই মাসের পূর্বাভাস দেবার ক্ষেত্রে, স্কেলটা কিছুটা ব্রিটিশ মুদ্রার দিকেই ঝুঁকে থাকছে – বিশ্লেষকদের 60% মনে করছেন, এই জুটি মার্চ মাসের শেষের দিকে 1.1400-1.1500-এর অঞ্চলে পৌঁছাতে সমর্থ হবে;
  • USD/JPY এটি বারংবার বলা হয়েছে যে, বাজারে Covid-19 মহামারির ত্রাস বিনিয়োগকারীদের রক্ষাকারী সম্পদগুলোর দিকে ঝুঁকতে বাধ্য করেছে। আর এখানেই আপনাদের ফিয়ার ইন্ডেক্স VIX-এর গতিবিধির উপর মনোযোগ দেওয়া উচিৎ, যা শেয়ার বাজারের অস্থিরতার প্রত্যাশার মাপকাঠিগুলোর একটা। এটা সাধারণভাবে স্বীকার করে নেওয়া হয় যে, VIX যদি 40%-এ পৌঁছে যায় এবং তারপরও তার বৃদ্ধি জারি থাকে, তার মানে শেয়ার বাজারে ভয়ের বাতাবরণ শুরু হয়েছে। অতএব, গত আধ মাস ধরে, এই সূচক 15% থেকে বেড়ে প্রায় 47% হয়েছে। মার্কিন সরকারের বন্ডের আয়ে পতনের জন্য আপনি যদি ডলারের আরেকটা পতন যোগ করেন, তাহলে এটা পরিষ্কার হয়ে যায় যে, সেই পরিস্থিতিতে ইয়েন হল বেশি বড় বিজেতা। "ইয়েন উদয়ের দেশ" – এই নামেই এখন বেশিরভাগ বিনিয়োগকারীরা জাপানকে ডাকছেন।
    এছাড়াও প্রযুক্তিগত বিশ্লেষণ সামগ্রীগুলির মধ্যে দিয়েও বাজারের ত্রাস প্রতিফলিত হচ্ছে। প্রবণতা সূচকগুলির 100% এবং অসিলেটরগুলির 85%-এর রং এখন লাল।
    অসিলেটরগুলির বাকি 15% মাত্রাতিরিক্ত ক্রয়ের ইঙ্গিত দেয়। তাদের অনুসরণ করে, বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞই, যাদেরকে গ্রাফিক্স সহযোগে বিশ্লেষণও সমর্থন করছে, এই জুটির ঘুরে দাঁড়িয়ে উপর দিকে যাবার প্রত্যাশা করছে। এটা পরিষ্কার যে, প্রবণতা পরিবর্তিত হয়ে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা তৈরির পিছনে Covid-19-র বিরুদ্ধে চলা লড়াইগুলোর সাফল্য সরাসরিভাবে সম্পর্কযুক্ত। অতএব, আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসগুলো খুবই সাবধানী: এখানে মাত্র 55% বিশ্লেষকই এই জুটির বৃদ্ধির পক্ষে মত দিয়েছে। কিন্তু ডলারের জন্য মধ্য-মেয়াদি পূর্বাভাসকে অনেক বেশি আশাবাদী দেখাচ্ছে: বিশেষজ্ঞদের 80% ইয়েন-এর সাপেক্ষে এর বৃদ্ধির প্রত্যাশা করছে। নিকটবর্তী প্রতিরোধ হল 107.70, লক্ষ্য হল, 108.25-109.65-এর স্তরে ফিরে যাওয়া।
    অবলম্বনের অঞ্চল হল, 104.45-105.00। বাণিজ্যিক ঝুঁকি জন্য এই সময়টা ছিল সর্বোচ্চ, যে কারণে দামগুলো শুধুমাত্র 2019-এর দামেই আটকে ছিল না, বরং 2018-র দামেও আটকে ছিল। আর এই জুটি যদি এই অবলম্বনকে ভেঙ্গে বেরোতে পারে, তাহলে তাদের জন্য 2016 সালের সর্বনিম্ন স্তর 99.00-101.00-এর অঞ্চল খোলা রয়েছে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি এটা খেয়াল রাখা উচিৎ যে, সাধারণভাবে, খবরের প্রেক্ষাপট বিটকয়েনের জন্য সুবিধাজনক হয়। উদাহরণস্বরূপ, জার্মান ফেডেরাল অফিস ফর ফাইনান্সিয়াল সুপারভিশন (BaFin) প্রথমবারের জন্য ক্রিপ্টোকারেন্সিককে একটা আর্থিক উপকরণ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।  আর লন্ডনের সর্ববৃহৎ বিমা সংস্থা Lloyd's of London, সেই সঙ্গে নতুন সংস্থা Coincover, একযোগে হট ওয়ালেটে ক্রিপ্টোকারেন্সির বিমার ব্যাপারে একটা সমাধানের পথ দেখিয়েছে। তাদের মতে, বছরের শুরু থেকেই ডিজিটাল বাজার "চাঙ্গা” হতে শুরু করে দিয়েছে, তাই আমরা কারবারি ও বিনিয়োগকারীদের একটা "নতুন ঢেউ” দেখার আশা করতে পারি। মাইনাররাও পিছু হঠছে না: গত সপ্তাহে বিটকয়েন নেটওয়ার্কের হ্যাশরেট প্রতি সেকেন্ডে 136 হ্যাশরেট উঠে একটা নতুন নজির গড়েছে।
    এই সবকিছু সেই সব বিশ্লেষকদের পূর্বাভাসগুলোকে প্রভাবিত করেছে যাদের মধ্যেও আশাবাদ জিইয়ে রয়েছে। তাদের মধ্যে 65% মনে করেন BTC/USD জুটি অদূর ভবিষ্যতে $9,500-10,000-এর অঞ্চলে উঠে আসবে, 10% নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছে এবং মাত্র 25% এই জুটির $8,250-এর হরাইজনের পতনের প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছে।

 

NordFX বিশ্লেষণ গোষ্ঠী

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা  আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ পুরোপুরি হারানোর কারণ হতে পারে


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)