ডিসেম্বর 28, 2019

নতুন বছরে প্রধান প্রধান প্রচলিত মুদ্রা যুগল থেকে সম্ভাব্য প্রত্যাশা।

এবিষয়ে কোন সন্দেহ নেই যে মধ্যস্থতাকারী সংস্থাগুলি এবং ব্যক্তিগত বাণজ্যিক সংস্থাগুলির বিশাল সংখ্যক বিবেচনা করে ইইউআর/ইউএসডি যুগলকে তাদের কর্মধারার প্রধান হাতিয়ার হিসেবে। অন্যান্য সূত্র থেকে বলা হয় ফোরেক্স মার্কেটের 22% থেকে 32% এই যুগল ধারণ করে।ইউএসডি/জেপিওয়াই, জিবিপি/ইউএসডি,ওইউডি/ইউএসডি,ইউএসডি/সিএইচএফ,ইউএসডি/সিএডি,ইইউআর/জেপিওয়াই এবং ইইউআর/জিবিপি দ্বারা অনুসৃত এটি হয়।

এই সমস্ত মুদ্রাগুলি, প্রাথমিকভাবে ডলার এবং ইউরো, কম বেশি প্রধান বৃহৎ অর্ছনৈতিক ক্ষেত্রে সূচককারী ও রাজনৈতিক ঘটনার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত,যার মধ্যে প্রযুক্তবিদগত বিশ্লেষণের দৃষ্টিকোণ থেকে একটি প্রতিকূলতা আছে এবং বিপরীতদিকে, একটি অনুকূলতাও আছে মৌলিক বিশ্লেষণের অনুসরণে আত্মপক্ষসমর্থনকারীদের ক্ষেত্রে। প্রথমক্ষেত্রে, ইউএসের রাষ্ট্রপতির মাত্র একটি টুইটার পোস্ট সবচেয়ে বেশি ক্ষমতাপূর্ণ সমর্থন/প্রতিরোধ অঞ্চলে প্রথম সাফল্য এনে দিয়েছে, বিরোধী চ্যানেলগুলি এবং তাদের প্রবণতা,পরিচালনা উন্মাদের ন্যায় সূচিত করে,আর ইলিয়ট তরঙ্গ স্বল্প কাঁদার ছিটে লেগেছে।দ্বিতীয়ক্ষেত্রে, বৃহদাকার অর্থনৈতিক সরিসংখ্যান অনুমোদন করেছে, লেখচিত্রের তথ্য এবং ক্যান্ডেলস্টিক বিশ্লেষণের শির না ভঙ্গ করে,পরিস্কার সুন্দরভাবে দীর্ঘমেয়াদী সঠিক পূর্বাভাস জানিয়েছে। উদাহরমস্বরূপ, আগামী 12 মাসের জন্য পূর্বাভাস।   

সুতরাং,পারদর্শীদের অনুসরণে,কী,অপেক্ষা করছে আগামী বছরের জন্য?

 

ডিউস্চেক ব্যাঙ্ক, গোল্ডম্যান স্যাক্চ,ব্যাঙ্ক অফ নিউ ইয়র্ক মেলন এবং আরো অনেক সংখ্যক ব্যাঙ্কেতে বিশ্লেষকের ঐক্যসম্মতভাবে 2020তে ইউএস ডলারের পতন সম্পর্কে ভবিষ্যতবাণী করেছেন।পতনের সম্ভাব্য প্রধান কারণ বিশ্ব অর্থনীতির বৃদ্ধির মন্থরতা হতে পারে, যা ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদের চাহিদার বৃদ্ধি ঘটাতে পারে। বিশেষত ইউএস ফেডেরাল রিসার্ভ,রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময় থেকে ডোন্যাল ট্রাম্পের কাছ থেকে চাপে ছিল,সুদের হার কমানো চালু রাখা নিদেনপক্ষে বিদ্যমান মাত্রায় যাতে থাকে সেই প্রচেষ্টায়।

ফিন্যালসিয়াল টাইম লিখেছে যে, সিটিগ্রুপ বিশেষজ্ঞ অনুসরণে, পরিমানগত সহজতা(কিউই)নীতি, পেডেরাল রিভার্স দ্বারা পরিচালিত এবং বাজার উথ্থান করতে খুচরো ডলার লিকিউডিটি ডলার মন্দাভাবের জন্য অনুঘটকের কাজ করবে। সুইস ব্যাঙ্ক লোম্বার্ড ওডিয়ার,যা বিশ্বের বৃহত্তম বিনিয়োগ সংস্থাগুলির মধ্যে অন্যতম তাদের বিশ্লেষকগণ,ব্ল্যাকরক, যারা প্রত্যাশা করছেন ডলারের সামঞ্জস্যপূর্ণ হ্রাসের আগামী ছমাসের মধ্যে, তাদের সহকর্মী সিটিগ্রুপ তাতে সম্মতি জানিয়েছেন।

জেপি মর্গ্যান চ্জের বিশেষজ্ঞদের গণনা অনুযায়ী 2020-র শেষে ইউরো/ডলার জুটির মাত্রা দাঁড়াবে 1.14 এ।গোল্ডম্যান স্যাকস এবং ব্যাঙ্ক অব আমেরিকা মেরিল লিঞ্চ ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন 1.15 এ।এবং জার্মান ডয়েশ ব্যাঙ্ক এবং ফ্রেঞ্চ স্যোশিয়েট জেনারেলের পূর্বাভাস অনুযায়ী ডলারের অবস্থা আরো খারাপ হতে পারে: তাদের বিশ্বাস অনুযায়ী এক বছরের মধ্যে ইউরো বাজারে $1.20 এ চলবে।

ব্লুমবার্গের কথা অনুযায়ী, বাজারের দুটি বৃহত্তম নিয়ন্ত্রকের সর্বসম্মত পূর্বাভাস অনুযায়ী 2020-র শেষে, ইউএস ডলার প্রায় আরো 400-500 পয়েন্ট হারাবে এবং ইউরো/ইউএস ডলার জুটি 1.116 জোনে উঠে আসবে।

ষড়যন্ত্র তাত্ত্বিকেরা অবশ্যই সন্দেহ করছেন বাজারে কারসাজি চলছে এবং এই বিষয়টি যে ব্যাঙ্কারেরা সর্বনিম্ন মূল্যে ডলার লিক্যুইডিটি ক্রয় করতে ইচ্ছুক যে কারণে “মন্দাগতি”-র পূর্বাভাস ছড়াচ্ছএন।এবং এখানে আন্দ্রিয়াস কোয়েনিগের কথা স্মরণ করা যথার্থ হবে যিনি হলেন বহুজাতিক বিনিয়োগ কোম্পানি আমুন্দি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের গ্লোবাল এফএক্স-র প্রধান, তিনি বলেছেন যে বহুবারই তিনি শুনেছেন ইউরোর সাপেক্ষে ডলারের পতন হবে এবং প্রতিবারই তার বিপরীতটি বাস্তবে ঘটেছে।তিনি বলেছেন, “আমি অত্যন্ত বিস্মিত হব যদি এই যৌথ সম্মত পূর্বাভাস বাস্তবায়িত হয়”।

."একথা সত্য যে ফেডের 1.75% সুদের হার ছোট ধরনের।”জন গর্ডন বলেছেন, ব্রোকারেজ নর্ডএফএক্সেতে তিনি একজন সামনের সারির বিশ্লেষক,“কিন্তু অন্যান্য নিয়ন্ত্রকদের বলতে গেলে শূণ্য বা সুদের হার নেই বললেই চলে। তথাপি রেট কাট, ট্রেড ওয়ার বা অন্যান্য সমস্যা আছে, 2018সাল থেকে ডলার ইউরো থেকে প্রায় হিসাবে 10%  বেশি বেড়েছে।আপনারা যদি বিগত বছরগুলির দিকে ফিরে তাকান দেখবেন,ফল পরিস্কারভাবে দেখা গেছে বেশিরভাগ বিনিয়োগকারীর  প্রাপ্তির ক্ষেত্রে যার কারণ ইউরোপীয় অর্থনীতির দুর্বলতা ও বেক্সিটের কারণে,ডলার পরিনত হয়েছে স্বর্গসম সুরক্ষিত মুদ্রায়।আর সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কের জন্য, অন্যান্য যে কোন সম্পদের থেকে এটি প্রধান সংরক্ষিত মুদ্রা হিসাবে এগিয়ে আছে।  

 অন্য প্রচলিত মুদ্রা সম্পর্কে, গোল্ডেন সাচে ভবিষ্যতবাণী করেছেন যে ব্রিটিশ পাউন্ডের বিনিময় হার 2020র শেষদিকে ডলারের নিরিখে পৌঁছে যাবে 1.37য়েতে।

ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা মেরিল লিঞ্চও বিশ্বাস করেন যে কেবল ইউরোই নয়,বরং, সর্বপ্রথমে,পাউন্ড বেক্সিটের অনিশ্চয়তার নির্ণয়ক থেকে সুবিধালব্ধ হওয়া উচিত,জিবিপি/ইউএসডি যুগল ফলে উঠে দাঁড়াবে 1.39 দিগন্তে।ডলারের পতন বর্হিগামী বাজারে সমর্থন পাবে,শক্তিশালী হয়ে উঠবে যে সমস্ত দেশগুলি অন্তর্ভুক্ত আছে অ্যাসোসিয়েশন অফ সাউথইষ্ট নেশনস(এএসইএএন)সেখানকার প্রচলিত মুদ্রার ক্ষেত্রে,এবং প্রতি ডলার অনুসারে 103ইয়েনের পতন হবে ইউএসডি/জেপিওয়াই যুগল থেকে।

কানাডীয় এবং নিউজিল্যান্ডের ডলার সুদের হারে আক্রান্ত হবে, এবং সোনার দাম বৃদ্ধি পাবে।

লিপ ইয়ার 2020তে 12টি মাস আছে , 366 দিন, এমন অনেককিছু ঘটতে পারে যা সমস্ত পূর্বাভাস মিথ্যা করে দিতে পারে।ইউনাইটেড স্টেটসের গৃহ পরিস্থির উপর নির্ভর করবে ডলারে হ্রাসবৃদ্ধি,এবং বিশ্বময় বাজারে কী ঘটবে তার উপরও নির্ভর করবে, আর শুধু আমেরিকায় নয়, ইউরোপ এশিয়াতেও তাই হবে।“আমার মনে হয় খেলাটার নীতিগুলি সম্পূর্ণভাবে আমেরিকা পাশা পাল্টে দেবে চীনের সঙ্গে ডিল করে....সবকিছুরই পরিবর্তন হতে পারে!"-  বিশ্বায়ন কৌশলী ডেভিড ব্লুম এইচএসবিসিতে এই মন্তব্য করেছেন।

এটা কী সবকিছু পাল্টে দেবে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে আর বেশি সময় বাকি নেই।এই সময়ের জন্য:
ধৈর্য্য, সৌভাগ্য এবং সমস্ত আনন্দময় ইচ্ছেগুলির পূরণ ঘটুক!

শুভ নব বর্ষ, 2020!

 

 স্মর্তব্য: এই বিষয়গুলি অর্থনৈতিক বাজারের বিনিয়োগের কাজের জন্য পরামর্শ বা নির্দেশাবলি হিসাবে ধরা উচিত নয়:এগুলি শুধু তথ্যপ্রদায়ক উদ্দেশ্যে গ্রহণীয়। অর্তনৈতিক মার্কেটে ট্রেডিং দুরুহ ঝুঁকিপূর্ণ যা সঞ্চিত রাশিতে লাভ বা লোকসান এনে দিতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)