সেপ্টেম্বর 22, 2019

প্রথমে, গত সপ্তাহের ঘটনাগুলোর একটা পর্যালোচনা:

  • EUR/USD। বিশ্লেষণগুলিতে এ ব্যাপারে বহু দিন ধরেই বলে আসা হচ্ছিল এবং তা-ই ঘটল: গত 18ই সেপ্টেম্বর, বুধবার, US ফেডেরাল রিজার্ভ তাদের মূল সূদের হার 0.25% থেকে 0.20%-এ নামিয়ে এনেছে। কিন্তু যেহেতু তারা এ ব্যাপারে অনেক দিন আগে থেকেই বলে আসছিল, তাই বাজারও বিষয়টির ব্যাপারে আগে থেকে নিজেদের প্রস্তুত করেই রেখেছিল, আর তাই “যুগান্তকারী” কোন লাফ বাজারে দেখা যায়নি। অপরদিকে, অনিশ্চয়তা কমেছে, এবং এই জুটি 1.1000-1.1075-এর অলিন্দের দেওয়াল ঘেঁষে চলতে শুরু করেছে, যে ব্যাপারে কারবারিরা ইতিমধ্যেই অবগত রয়েছেন।
    আমরা আমাদের আগের পূর্বাভাসগুলিতে গত দুই মাসের পিভোট পয়েন্ট জোন সম্পর্কে আগেই উল্লেখ করেছি, যা বাজারে অনিশ্চয়তা থাকার কারণে তৈরি হয়েছিল। গত সপ্তাহে তার স্বীকৃতি পাওয়া গেল। তাই, অন্যদিকে, ফেডেরাল রিজার্ভের বুধবারের সাংবাদিক সম্মেলন কোন প্রশমনমূলক বক্তব্য ছাড়াই শেষ হয়, এই বছরে দরে আর কোন হ্রাস দেখা যাবে না এ ব্যাপারে জোর দিয়ে। কিন্তু ঠিক তার পরের দিনই, ব্যাংক অব সুইজারল্যান্ড এবং ইংল্যান্ড তাদের নিজ-নিজ বৈঠকে নমনীয়তার নীতিকে খারিজ করে দেয়, তাদের দরগুলিকে একই জায়গায় রেখে দিয়ে, এবং ব্যাংক অব নরওয়ে তাদের মূল দর বৃদ্ধি করে। এটা EUR/USD জুটিকে কঠোরভাবে পূর্বে যেতে বাধ্য করে অনিশ্চয়তাকে আরও বাড়িয়েই তোলে;
  • GBP/USD। একটা অনিয়ন্ত্রিত Brexit থেকে পাউন্ড তার হারানো দর ক্রমশ ফিরে পেতে থাকে, এবং এর 3রা সেপ্টেম্বরের নিম্ন স্তর 1.1958-এর সাপেক্ষে 5% যোগ করে। এই সপ্তাহে, ইউরোপিয়ান কমিশন-এর সভাপতি জিন-ক্লড জাঙ্কার আয়ারল্যান্ড সীমানায় তাদের শক্তিকেন্দ্র (ব্যাকস্টপ) বর্জন করার ব্যাপারে নিজেদের আগ্রহের কথা ঘোষণা করেন যদি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নতুন এবং গ্রহণযোগ্য কোন কিছু নিয়ে আসেন। এটা পাউন্ডকে আরও কিছুটা ঠেলে তোলে, যার ফলে এই জুটি 1.2440-1.2470-র অলিন্দে পৌঁছে যায়, যার মধ্যে দিয়ে এরা জুলাই মাসেই যাচ্ছিল, এবং পাঁচ-দিবসীয় পর্যায়কাল 1.2470 স্তরে সম্পূর্ণ করে;
  • USD/JPY। এই জুটি, 108.47 উচ্চতায় পৌঁছে, গত সপ্তাহের মাঝামাঝি তাদের মধ্য-মেয়াদি উচ্চ স্তরে সংশোধন আনে। এই ঘটনার প্রেক্ষাপটে রয়েছে ব্যাংক অব জাপানের এই সিদ্ধান্ত যে, তারা শূন্য অঞ্চলে (জিরো জোন) সরকারি 10-বছর মেয়াদি বন্ডগুলি থেকে আয়ের লক্ষ্যমাত্রাকে বজায় রাখবে। BOJ প্রধান হারুহিকো কুরোদার একটি বিবৃতিও ইয়েনকে দুর্বল করতে সাহায্য করেছিলে, যিনি বলেছিলেন, আরও দর হ্রাসের বিষয়টি এখন প্রাসঙ্গিক।
    তবে, যথারীতি, ট্রাম্পের কথাই বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বেশি প্রভাব ফেলেছে। আর এইবার US প্রেসিডেন্ট বলেছেন যে, ওয়াশিংটন আর টোকিওর মধ্যে একটা প্রাথমিক বাণিজ্যিক সমঝোতা হয়েছে, যে মোতাবেক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শুল্ক বৃদ্ধি না করা এবং জাপানি গাড়ির জন্য কোটা চালু না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, এবং টোকিওর তরফে সাত বছরের মধ্যে মার্কিন ওয়াইনের শুল্কগুলিকে পুনঃনির্দিষ্ট করে ফেলা হবে।
    ওয়াইনের বিনিময়ে গাড়ি - এই ধরনের ডিল স্পষ্টতই জাপানের পক্ষে গেছে। সেই সঙ্গে, মধ্যপ্রাচ্যে ভূ-রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব উত্তোরত্তর বৃদ্ধি পাবার কারণে সংরক্ষণমূলক সম্পদগুলির চাহিদা বেড়েছে, যার মধ্যে, অবশ্যই, ইয়েন রয়েছে। ফলস্বরূপ, এই জুটি প্রায় 100 পয়েন্ট বিপরীত দিকে গেছে, যার সাপ্তাহিক পর্ব 107.55-এ শেষ হয়েছে;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। গত সপ্তাহে বিটকয়েনের অপ্রত্যাশিত 6% খাঁড়া পতন (BTC/USD) এবং তারপর এর অপ্রত্যাশিত বৃদ্ধি, কোন স্পষ্ট কারণ ছাড়াই, একদিকে কিছু মানুষকে খুশি করেছে আবার অপরদিকে কিছু মানুষের মধ্যে ঠাণ্ডা ঘামের স্রোত বয়ে যেতে বাধ্য করেছে। এই পতনেরে কারণ ছিল দীর্ঘ পজিশনগুলি ব্যাপকভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়া: একটি BitMEX ক্রিপ্টো বিনিময়েই বন্ধ হয়ে যাওয়া পজিশনের পরিমাণের মূল্য ছিল $150 মিলিয়ন।
    কী ঘটেছিল তার সবচেয়ে সম্ভাব্য ব্যাখ্যা হল ছোট ছোট কারবারিদের সাপেক্ষে বড় মাপের মূলধনের খেলা, বিটকয়েনে দ্রুত উত্থানের অভাবের কারণে হওয়া হতাশা। একইসঙ্গে, বড় খেলোয়াড়েরা, যারা ভয়জনিত পতন বা প্যানিক কোলাপ্স-এর কারণ হতে চায় না, এই জুটিকে গ্রহণযোগ্য স্তরের নিচে নামতে দেয়নি, একে $10,000-এর পিভোট পয়েন্টের একটি স্বচ্ছন্দ শ্রেণিতে রেখে দিয়েছিল।
    মজার ব্যাপার হল, প্রধান প্রধান অল্টকয়েনগুলি স্বাধীন জীবনযাপন করতে শুরু করেছে বলে মনে হয়েছে, সেগুলো তাদের রেফারেন্স ক্রিপ্টোকারেন্সির গতিবিধিকে আংশিক অনুসরণ করেছিল মাত্র। অতএব, ইথিরিয়ামের (ETH/USD) দর গত তিন সপ্তাহ ধরে 35% বেড়েছে, লাইটকয়েনের (LTC/USD) বেড়েছে 30% এবং রিপল মাত্র 4 দিনেই (14 থেকে 18 সেপ্টেম্বর) 27% উঠতে সফল হয়েছে।  আর এইটা যে, এই ঘটনা সত্ত্বেও যে, বিটকয়েনের সর্বোচ্চ ওঠা-নামা এই মাসে 9%-এর বেশি ছাড়ায়নি।
    আমাদের মতে, সবচেয়ে যুক্তিগ্রাহ্য ব্যাখ্যা হল অল্টকয়েনের জন্য বাজারের চাতুর্য ছিল। বিটকয়েনের বিপরীতে, এখানে বিনিময় দরকে নিয়ন্ত্রিত করা অনেক বেশি সহজ, এমনকি উল্লেখযোগ্য রকমের কম পরিমাণগুলির ক্ষেত্রেও, যা ফাটকা কারবারিদের দ্রুত মুনাফা লাভের ব্যাপারে আকর্ষিত করবেই।

 

আগামি সপ্তাহের পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, একাধিক বিশ্লেষকদের মতামতগুলোকে, ও সেই সঙ্গে প্রযুক্তিগত ও গ্রাফিক্সভিত্তিক বিশ্লেষণের বহুবিধ পদ্ধতির ভিত্তিতে করা পূর্বাভাসগুলোকে একত্রিত করে, আমরা নিম্নোক্ত কথাগুলো বলতে পারি:

  • EUR/USD। 98.23-এর মজবুত প্রতিরোধ (রেজিস্ট্যান্স) স্তরকে কাটিয়ে উঠতে না পেরে, USDX সূচক সাইড চ্যানেলে এগিয়ে চলেছে। EUR/USD জুটিও পূর্ব দিকে এগিয়ে চলেছে। খুব সম্ভবত, ইউরোপের নিম্নমুখী (বিয়ারিশ) প্রভাব যেমন কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং (QE) এবং অনিয়ন্ত্রিত Brexit-কে বাজার ইতিমধ্যে বাজিয়ে দেখে নিয়েছে। বস্তুনিষ্ঠভাবে, US অর্থনীতি ইউরোপীয় অর্থনীতির থেকে শক্তিশালী। কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দ্বারা শুরু করা ডলার-চালিত বাণিজ্যযুদ্ধ প্রতিনিয়ত ডলারের গতি রোধ করে দিচ্ছে। আর এখন, সৌদি আরবের তৈল শোধনাগারগুলিতে ড্রোন আক্রমণের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে সরাসরি উষ্ণযুদ্ধের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে, যার সংগঠক হিসেবে ইরানকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। এটি পরিষ্কার যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিশ্চিতভাবেই এই সংঘাতে জড়িয়ে পড়বে।
    এই সবকিছুর ফলে EUR/USD-র শর্ট পজিশনগুলিকে বন্ধ হয়ে যাবে, এই সম্ভাবনা রয়েছে যে, এই জুটি সেপ্টেম্বরের নিম্ন স্তর 1.0925-কে শুধরে নিতে সক্ষম হবে না। বিশেষজ্ঞদের অর্ধেক এই পরিস্থিতির সঙ্গে একমত, এই প্রত্যাশা থেকে যে, এটা 1.1100 উচ্চতা অবধি বাড়বে। পরবর্তী লক্ষ্যমাত্রা হল 1.1160। বিশ্লেষকদের 20%-র বিশ্বাস এই জুটি তা সত্ত্বেও আরও নিচে নেমে প্রায় 1.0800-এ পৌঁছাবে। আর 30%-এর প্রত্যাশা হল, যাকে D1-এর উপর অসিলেটরগুলি সমর্থন করে, এটি সাইড ট্রেন্ড বজায় রাখবে;

  • GBP/USD। অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট-এর হিসেব অনুযায়ী, অনিয়ন্ত্রিত Brexit ইউরোজোন GDP থেকে 0.5 pp  এবং মিস্টি অ্যালবিয়ন GDP(!) থেকে 2 pp পরিমাণ কমিয়ে দেবে। এই ধরনের পতন, OECD বিশেষজ্ঞদের মতে, ইউরোজোন-কে খাদের কিনারে নিয়ে দাঁড় করাবে, এবং ব্রিটেন এক গভীর মন্দার কবলে পতিত হবে। এই ধরনের পূর্বাভাসগুলিতে সাড়া দিয়ে, বাজারগুলি, সাধারণ ক্রেতাদের মতোই, পাউন্ডের থেকে মুক্তি পেতে চেয়েছিল, যার ফলে এই মুদ্রা তার 2016-র নিম্ন স্তরে চলে যায়।
    আপনারা যদি গ্রাফের দিকে তাকান, তাহলে আপনার দেখতে পাবেন যে, তিন বছর আগে, 1.1945-1.1985-এর জোন থেকে ঠেলা খেয়ে, এই জুটি উপরে উঠেছিল, 2,400 পয়েন্ট অতিক্রম করে জানুয়ারী, 2018-এ 1.4345 উচ্চতায় পৌঁছেছিল। এই মুহূর্তে এই “ঐতিহাসিক” অভিজ্ঞতাই বিনিয়োগকারীদের পাউন্ড কিনতে কিছুটা অনুপ্রাণিত করছে, এই আশা থেকে যে, Brexit পরিস্থিতি হয়ত কোনভাবে সামলে যাবে এবং ব্যাংক অব ইংল্যান্ড, মুদ্রাস্ফীতির সঙ্গে লড়াই করে, সূদের হারে বৃদ্ধি করতে শুরু করবে।
    বিশ্লেষকদের মধ্যে, এই ধরনের অগ্রগতিতে বর্তমানে 40% সমর্থন করেন। D1-এর উপর অসিলেটরগুলির 80% শতাংশও এই পূর্বাভাসের সঙ্গে একমত। ঊর্ধ্বমুখী পরিস্থিতি (বুলিশ সিনারিও) যদি বাস্তবায়িত হয়, তাহলে এই জুটি প্রথমে 1.2575-1.2645 জোন অবধি, এবং তারপর আরও 100 পয়েন্ট উপরে উঠবে। সবচেয়ে আশাবাদী পূর্বাভাস এই জুটির জন্য এই বছরের শেষের দিকে গিয়ে 1.3100-র স্তর পর্যন্ত বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছে।
    তবে, এই মুহূর্তে, Brexit-এর প্রশ্নটি রয়েই গেছে, এবং তাই বেশিরভাগ বিশ্লেষক (60%), যাকে H4-এর উপর অসিলেটরদের এবং D1-এর উপর করা গ্রাফিক্স সহযোগে বিশ্লেষণের 70% সমর্থন করে, নিরাশাবাদী মেজাজ বজায় রেখে চলেছে, তাদের প্রত্যাশা মতো, শরৎকাল চলাকালীন এই জুটি গত 228(!) বছরে তাদের চরম নিম্ন স্তরের দিকে এগিয়ে যাবে যখন গত 7ই অক্টোবর, 2016 তারিখে পাউন্ডের দাম ছিল 1.19 ডলারের থেকে কিছুটা বেশি (1791 সালে এই GBP/USD জুটির দর ছিল 4.55)। নিটকতম সমর্থন অঞ্চলগুলি হল 1.2385-1.2400, 1.2280-1.2300, 1.2065-1.2200, 1.1955-1.2015;
  • USD/JPY। উপরে উল্লেখিত কারণগুলির জন্য, বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞ (65%) ডলারের পতন এবং H4-এর উপর সূচকগুলির 105.75-106.75.85% অঞ্চলে এই জুটির ফিরে আসার পক্ষে ভোট দিয়ে নিম্নমুখী গতিকে সমর্থন করেছে, এই পরিস্থিতির সঙ্গে সহমত পোষণ করে। তবে, অসিলেটরগুলির 15% ইতিমধ্যেই এই জুটির মাত্রাতিরিক্ত বিক্রির ব্যাপারে সংকেত দিয়েছে।
    বিশ্লেষকদের মধ্যে 30% ইয়েনের শক্তিশালী হওয়ার বিষয়টিকে একটি ক্ষণস্থায়ী ঘটনা হিসেবে দেখছেন এবং তাই তাদের পূর্বাভাস মতো এই জুটি 109.00 উচ্চতা অবধি উঠবে।
    ভৌগোলিক বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে, প্রথম ধাপে এটি এই জুটির বৃদ্ধিকে 108.50 হরাইজনে এবং তারপর তার পতনকে 106.75-এর স্তরে এঁকেছে। পরবর্তী সমর্থনের স্তরগুলি হল 105.75 এবং 105.00। নিম্নমুখী স্তরের (বিয়ার) লক্ষ্যমাত্রা হল 08/26/2019-এর নিম্ন স্তর যা ছিল 104.45;
  • ক্রিপ্টোকারেন্সি। ক্রিপ্টোমার্কেট “গুরুদের” থেকে প্রতিনিয়ত এই আশ্বাস থাকা সত্ত্বেও যে, বিটকয়েন অপরিহার্যভাবে 50, 100 বা 200 হাজার ডলারে উন্নীত হবে, এর দাম কিন্তু এখনও স্থিতিশীল অঞ্চলেই (কনসলিডেশন জোন) থেকে গেছে, যা $10,000 হরাইজন বরাবর চলছে। অধিকন্তু, BTC/USD জুটির অনিশ্চয়তা দিনে-দিনে হ্রাস পাচ্ছে। আর মনে হচ্ছে যে, এই পরিস্থিতি সেই সব বড় খেলোয়াড়দের জন্য বেশ সুবিধাজনক যারা এই নিম্ন স্তরের “বেড়া” তৈরি করছে এবং লেনদেনের পরিমাণের নিরীখে মুনাফা অর্জন করছে, তা এর দরের হঠাৎ করে লাফিয়ে কোন উচ্চতায় উঠে যাওয়ার উপর নির্ভর করে নয়।
    নিশ্চিতভাবেই, যে কোন সময় একটা সাফল্য এসে যেতেই পারে। তবে, কখন তা হবে এবং দাম কোন অভিমুখে য়াবে তা বর্তমান পরিস্থিতিতে বলাটা খুবই কঠিন। এই মুহূর্তে আমাদের শুধু মনে রাখতে হবে যে, যে সব বিশেষজ্ঞদের জিজ্ঞাসা করা হয়েছে তাদের মধ্যে 60%-র প্রত্যাশা ঊর্ধ্বমুখীর প্রতি, এবং 35%-র প্রত্যাশা এই জুটি পড়ে গিয়ে মোটামুটি $8000-এ নেমে আসবে।

 

রোমান বুটকো, NordFX

 

দ্রষ্টব্য: এই বিষয়বস্তুটিকে বিনিয়োগের সুপারিশ অথবা আর্থিক বাজারগুলিতে কাজ করার দিকনির্দেশ হিসেবে বিবেচনা করা উচিৎ হবে না: এগুলির উদ্দেশ্য শুধুমাত্র তথ্য সরবরাহ করা। আর্থিক বাজারগুলিতে কেনা-বেচা করা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ এবং তা লগ্নীকৃত অর্থ হারানোর কারণ হতে পারে।


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)