জুন 29, 2019

-প্রথমে গত সপ্তাহের ঘটনাবলী পর্যালোচনা করা যাকঃ

  • EUR/USD মুদ্রাজুড়ি। দুই সপ্তাহ আগে বেশীরভাগ বিশেষজ্ঞরা এই মুদ্রাজুড়ির সজোরে উর্ধ্বে ওঠার পূর্বাভাস করেছিলেন। তেজিবাজারের লক্ষ্য ছিল 1.1350-এর স্তরে ফিরে আসা এবং তারপরে আরো ওপরে গিয়ে 1.1420-1.1450-এর অঞ্চলে পৌঁছানো। এই পূর্বাভাস 100% নির্ভুল না হলেও 99% সত্যি হয়েছিলঃ এই মুদ্রাজুড়ি প্রথমে 25শে জুনের উচ্চ অবস্থান 1.1411-এর উচ্চতায় পৌঁছিয়েছিল। সেখানে সামান্য বিপরীতমুখী পরিবর্তন দেখা গিয়েছিল, এবং জাপানের ওসাকায় G20 শীর্ষবৈঠকের আলাপ-আলোচনার ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করে এই মুদ্রাজুড়ি 1.1345-1.1390-এর সংকীর্ণ প্রান্তের পার্শ্ববর্তী দিকে ঘুরে গিয়ে এই লেনদেনের সপ্তাহটিতে 1.1370-এ শেষ করেছিল;
  • GBP/USD  মুদ্রাজুড়ি। জুনের দ্বিতীয়ার্ধে 250 পয়েন্ট লাফ দেবার পরে, ব্রিটিশ মুদ্রা কিছুটা শান্ত হয়েছিল, এবং গত সপ্তাহটি তুলনামূলকভাবে শান্ত ছিল। এই মুদ্রাজুড়ি 1.2650-1.2765-এর প্রান্তে ফিরে এসেছিল এবং সপ্তাহটি 1.2700-এর শক্তিশালী সহায়ক/প্রতিরোধক অঞ্চলের কাছাকাছি গিয়ে শেষ করেছিল;
  • USD/JPY মুদ্রাজুড়ি। G20 আয়োজক দেশের মুদ্রা, জাপানী ইয়েনও মাসিক মূল বিন্দুর কাছাকাছি এসেছিল। G-20 নেতৃত্বের বৈঠকের পাশাপাশি ইউএস রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং চীনের রাষ্ট্রপতি জি জিংপেং-এর বৈঠকের পরে পরেই নিরাপদ স্বর্গমুদ্রার চাহিদা সামান্য কমেছিল আর যার ফলে গত 5.5 মাসের নিম্ন অবস্থান 106.77-এর থেকে সরে এসে এই মুদ্রাজুড়ির দর প্রতি 1 ইউএস ডলারে বৃদ্ধি পেয়ে 107.90 ইয়েন হয়েছিল;
  • ক্রিপ্টোমুদ্রা। “Bitcoin থেমে থাকে না!” কেউ কেউ আনন্দে চীৎকার করেন। “এটি সহজেই থেমে যায়,”  অন্যেরা আবার বিদ্রুপের হাসি হাসেনঃ যারা প্রথমেই ঠিক অভিমুখে যাবার ট্রেনে চাপেন এবং ঠিক স্টেশনেই নামতে পেরেছেন, তারা বিশাল লাভ করতে পেরেছেন। যারা শেষের বগিতে ঝাপিয়ে উঠেছেন অথবা সঠিক ট্রেনে ওঠেন নি, তারা বিশাল ক্ষতির মুখ দেখেছেন।
    Bitcoin-এর গত তিন সপ্তাহে বৃদ্ধি পেয়ে 7,500$ থেকে 13,765$-এ গিয়েছে, যার অর্থ হল 80%-এর বেশী বৃদ্ধি। এবং তারপরে, মাত্র দুই দিনেই, এটিতে ধ্বস নামল এবং 10,390$-এ নেমে এল যার মানে হল 25% পতন। এবং ঠিক পরের দিনেই আবার 15% বৃদ্ধি
    মজার ব্যাপার হল যে BTC-র যখন 25%, পতন হয়েছিল, ক্রিপ্টোবাজারে মূলধনী বিনিয়োগের পরিমাণ মাত্র 13% হ্রাস পেয়েছিল (367.42 বিলিয়ন ডলার থেকে 318.61 বিলিয়ন ডলারে)। এটি ইঙ্গিত করছে যে অনেক বিনিয়োগকারীরা লাভ তুলে নেওয়ার জন্য তাড়াহুড়ো করে Bitcoin বিক্রি করেন নি বরং আশা করেছেন যে এর বৃদ্ধি বজায় থাকবে।
    একই সময়ে বিশ্লেষকরা সতর্ক করছেন যে অন্যান্য ক্রিপ্টোমুদ্রা থেকে এরকম উত্থান আশা করা উচিৎ হবে না। এগুলি এমনকি শীর্ষস্থানীয় ক্রিপ্টোমুদ্রাগুলির চার্টেও স্পষ্টভাবে লক্ষ্য করা গিয়েছে, যেমন উদাহরণস্বরূপ, Litecoin (LTC/USD) অথবা Ripple (XRP/USD) ক্রিপ্টোমুদ্রা। কিন্তু Ethereum (ETH/USD) সম্পূর্ণ সঠিকভাবে উল্লেখ ক্রিপ্টোমুদ্রার সক্রিয়তার পুনরাবৃত্তি করেছে।

 

-আসন্ন সপ্তাহের পূর্বাভাসের বিষয়ে, অনেক বিশ্লেষকদের মতামতের সাথে সাথে প্রাযুক্তিক ও রৈখিক বিশ্লেষণের বিভিন্ন পদ্ধতির ভিত্তিতে কৃত পূর্বাভাসগুলিকে সংক্ষিপ্ত করে আমরা নিম্মলিখিত বক্তব্য রাখছিঃ

  • EUR/USD মুদ্রাজুড়ি। G20 শীর্ষবৈঠক থেকে বাজার কোন কিছু দারুণ সাফল্যের প্রত্যাশা করছে না। এই ফোরামে বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী আর্থিকসম্পন্ন দেশগুলির দ্বিপাক্ষিক আলোচনা, এবং সর্বপ্রথমে, চীনা রাষ্ট্রপতি জিং জিনপিং এবং ইউএস রাষ্ট্রপতি ট্রাম্পের সাথে শনিবার, 29শে জুনের আলোচনার প্রতি অনেক আগ্রহ রয়েছে। বিনিয়োগকারীরা এই দেশগুলির বাণিজ্য বিরোধিতার প্রাবাল্য হ্রাস পাবে বলে আশা রাখছেন, এবং যদি সত্যিই তাই হয়, বিদেশী মুদ্রার বাজার হয়তো ফাঁক থেকেই শুরু হবে।
    তবে, অনেক বিশেষজ্ঞরা যথেষ্ট শান্তভাবেই এই ঘটনাটিকে দেখছেন এবং বিশ্বাস করেন যে এই যুদ্ধে কোন সার্বিক শান্তি আসবে না। এই শুল্ক হার চীন থেকে আসা 10,000 বিভাগের সামগ্রীকে প্রভাবিত করেছে, এবং বেজিং যে শর্ত দিয়েছে তার মধ্যে একটি হল ইউনাইটেড স্টেটস দ্বারা সমস্ত বর্তমান শুল্ক হারের বাতিলকরণ। ট্রাম্পের দ্বারা এরকম কিছু শর্ত মানার সম্ভাবনা প্রায় শূন্যের মতই। চীনা সংস্থা হুয়াই-এর সাথে সহযোগিতার উপরে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সম্ভাবনাও খুব কম। উভয়পক্ষই একে অপরের দিকে তাকিয়ে মৃদু হাসবে, হাত মেলাবে, কিন্তু কেইউ কদাচিৎ কিছু সত্যিকারের ছাড় দেবে না। বৈঠকের এরকম শূন্য (অথবা নূন্যতম) ফলাফল ট্রাম্পকে আমেরিকায় রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রাক্কালে তার পরবর্তী “বিজয়” ঘোষণা করতে, এবং চীনকে সময় পেতে সাহায্য করবে।
    এরকম পরিস্থিতিতে, ইউএস ফেডারেল রিজার্ভ এই “দাবা খেলা”-য় একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে পরিণত হবে, যা, পতনমুখী বিশ্ব শেয়ার সূচকগুলির পশ্চাদপটে, এখনও আর্থিক নীতিকে সহজ করতে বাধ্য হবে, আর যার ফলে ইউএস মুদ্রা দুর্বল হয়ে পড়বে।
    অপেক্ষাকৃত দুর্বল ইউএস বৃহৎ অর্থনৈতিক ডেটা, যা পরবর্তী সপ্তাহে প্রকাশিত হবে, তা ফেড-কে সুদের হার হ্রাস করতে বাধ্য করতে পারে। ISM ব্যবসায়িক কার্যকলাপ সূচকের নির্দেশকগুলি 1লা এবং 3য় জুলাইয়ে জানা যাবে, এবং শ্রমবাজারের (NFP সহ) ডেটা ঐতিহ্যগতভাবে এই মাসের প্রথম শুক্রবার, 05ই জুলাইয়ে প্রকাশিত হবে।
    এক-চতুর্থাংশ বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে ফেড খুব শীঘ্রই, এর 31শে জুলাইয়ের বৈঠকে 25 অথবা এমনকি 50 বেসিস পয়েন্ট সুদের হার কমাবে। বাজার ফিনল্যাণ্ডে 1লা জুলাইয়ে FOMC সদস্য রিচার্ড ক্ল্যারিডা এবং 2য় জুলাইয়ে জুরিখে ফেড উপ-সভাপতি জন উইলিয়ামসের বক্তব্য থেকেও আরো নির্ভুল ইঙ্গিতের আশা করছে।
    অপরপক্ষে, ইউরোজোনের রাজনৈতিক ঝুঁকি এবং অর্থনৈতিক সমস্যাগুলি এখনও মিলিয়ে যায় নি। এবং এটির সম্ভাবনাকেও বাদ দেওয়া যায় না যে অর্থনীতিকে উৎসাহিত করতে ECB অতিরিক্ত কিছু সুবিধার প্যাকেজের সুযোগ দেবে, এবং এসব 25শে জুলাইয়ের বৈঠকে ঘটবে।
    আসন্ন সপ্তাহের জন্য কোন সুনির্দিষ্ট পূর্বাভাস দেওয়া সম্ভব নয়, যেহেতু বিশেষজ্ঞদের মতামত  প্রায় সমানভাবে বিভক্ত হয়ে রয়েছে। তবে, যদি মাসিক এবং মধ্য-মেয়াদী পূর্বাভাসের দিকে তাকানো যায়, 75% বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে এই মুদ্রাজুড়ি আবারও একবার 2019 সালের বসন্তের নিম্ন অবস্থান ধরার চেষ্টা করবে এবং এখনও 1.1100-এর অঞ্চলের সহায়ক স্তরকে ভেঙ্গে ফেলবে। মন্দাবাজারের নিম্নলিখিত লক্ষ্যগুলি হল 1.0900 এবং 1.0800। বাকি 25% বিশেষজ্ঞদের মতে, 1.1100-এর স্তর হল পতনের সীমা, এবং এই মুদ্রাজুড়ি আশা করছে যে এই বৃদ্ধি 1.1530-1.1650-এর অঞ্চলে পৌঁছাবে।
    নির্দেশকদের কথা বলতে গেলে, বেশীরভাগ প্রবণতা নির্দেশক এবং D1-তে দোদুল্যমান সূচকগুলি সবুজ রং দেখাচ্ছে। তবে, ইতিমধ্যেই 20% দোদুল্যমান সূচক ইঙ্গিত দিয়েছে যে এই মুদ্রাজুড়ির অধিক ক্রয় হয়েছে।
  • GBP/USD  মুদ্রাজুড়ি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ধীরে ধীরে অপসৃত হচ্ছেন, এবং তার সবথেকে সম্ভাব্য উত্তরাধিকারী, বরিস জনসন, ব্রেক্সিটের উপর সংবাদপ্রদানের হোতা হবেন। তিনি গত সপ্তাহে বিবৃতি দিয়েছিলেন যে সরকারের প্রধান হবার পরে, তিনি কোন চুক্তি ছাড়া ইইউ থেকে তার দেশের “কঠোর” প্রস্থান রক্ষা করার জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করবেন। জনসনের কথা অনুযায়ী, এরকম একটি হুমকি ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের সাথে আলাপ-আলোচনায় তার অবস্থান শক্ত করবে, এবং এই কারণে এই রাজনীতিক এমনকি পার্লামেন্টের কাজে একটি বিরতি দেবার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।
    বাজার ইতিমধ্যেই ইউরোর তুলনায় পাউণ্ডের পতনের বিষয়ে এরকম একটি বাগাড়ম্বরে প্রতিক্রিয়া করেছে। GBP/USD মুদ্রাজুড়ির কথা বলতে গেলে, বেশীরভাগ বিশেষজ্ঞ (65%) আশা করছেন যে ব্রিটিশ মুদ্রার আরো অবনমন হবে, এবং এই মুদ্রাজুড়ি প্রথমে 1.2475-1.2500-এর অঞ্চলে নামবে, এবং তারপরে, জুলাই মাসে 2019 সালের 3য় জানুয়ারীর নিম্ন অবস্থান 1.2400-এ গিয়ে স্থিত হবে।
    35% বিশ্লেষক এখনও আশাবাদী আছেন এবং ইইউ-র সাথে আলাপ-আলোচনায় এক ইতিবাচক পদক্ষেপ হবে বলে আশা রাখছেন। এই ক্ষেত্রে, এই মুদ্রাজুড়ির উপরে ওঠা বজায় থাকবে। আশু লক্ষ্যগুলি হল 1.2775 এবং 1.2830, তারপরে 1.2930।
    D1-তে রৈখিক বিশ্লেষণ 1.2500-1.2860-এর চ্যানেলে বৃত্তাকার গমনের মাধ্যমে এক সমঝোতা বিকল্পের পথ দেখাচ্ছে;
  • USD/JPY মুদ্রাজুড়ি। যেমন ইতিমধ্যেই উল্লেখ করা হয়েছে, G20-তে রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প এবং চেয়ারম্যান জিংয়ের বৈঠকের সবথেকে সম্ভাব্য ফলাফল হল দুই দেশের মধ্যে অসীম এবং নিস্ফলা আলাপ-আলোচনা জারি থাকা। এরকম এক পরিস্থিতিতে, সার্বজনীন শেয়ার সূচকগুলি একটি পতনের জন্য অপেক্ষা করছে, ইউএস আর্থিক নীতি সহজ হচ্ছে, এবং ডলারের দাম পড়ছে। বিনিয়োগকারীরা স্বাভাবিকভাবেই এই সবকিছুতে ইয়েন সহ আত্মরক্ষামূলক পরিসম্পদের প্রতি তাদের চাহিদা বৃদ্ধির প্রতিক্রিয়া জানাবে।
    তবে, এটি একদিনের বা এক সপ্তাহেরও বিষয় নয়। ইতিমধ্যে, মাত্র 40% বিশেষজ্ঞ এবং D1-তে রৈখিক বিশ্লেষণ জাপানী মুদ্রার শক্তিশালী হওয়া এবং এই মুদ্রাজুড়ির দক্ষিণদিশার প্রতি গমনাগমনের পক্ষে সমর্থন জানাচ্ছেন। অন্য 30% বিশেষজ্ঞ উত্তরদিশার প্রতি ইঙ্গিত করছেন, অপরপক্ষে বাকি বিশ্লেষকরা নিছকই তাদের ঘাড় নাড়াচ্ছেন। দোদুল্যমান সূচক এবং D1-তে প্রবণতা নির্দেশকের পরিস্থিতি প্রায় মোটামুটি একই।
    সহায়ক স্তরগুলি হল 106.80-107.00-এর অঞ্চল, তারপরে 105.50-106.00-এ। প্রতিরোধক স্তরগুলি হল 108.85, 109.70 এবং 110.65;
  • ক্রিপ্টোমুদ্রা।- Morgan Creek Digital-এর প্রবর্তক এবং অংশীদার, অ্যান্টনি "পম্প" পম্পলিয়ানো তার সংস্থার গ্রাহকদের কাছে এক পত্রে Bitcoin-এর 100 হাজার ডলার পর্যন্ত বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছেন। তার মতে, পরবর্তী 2.5 বছরে এরকম অগ্রগতির সম্ভাবনা হল 70-75%। একজন প্রখ্যাত ট্রেডার এবং বিশ্লেষক পিটার ব্র্যাণ্ডটের দ্বারাও একই রকমের পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। তিনি লিখেছেন, “Bitcoin 100,000 ডলারের দিকে এগোচ্ছে। BTC/USD ক্রিপ্টোজুড়ি 2010 সাল থেকে চতুর্থতম অধিবৃত্তসদৃশ দশার মধ্যে দিয়ে চলেছে। আমার 45 বছর ট্রেডিংয়ে লগারিদমের রেখচিত্রে আর এরকম অন্য কোন বাজার দেখতে পাচ্ছি না।”
    কিন্তু Fundstrat Global Advisors-এর একজন প্রতিষ্ঠাতা টম লি এবং 45 জন বিশেষজ্ঞ বিশ্বাস করেন যে Bitcoin-এর এক শক্তিশালী সংশোধন আশা করা হচ্ছে। এবং এটি সত্যি নয় যে BTC / USD ক্রিপ্টোজুড়ির 26-27শে জুলাইয়ে 25% পতনের পূর্বাভাসকে ঠিক তাই বলা যেতে পারে। বিশ্লেষকরা এই ক্রিপ্টোজুড়ির 7,500-8,000$-এর স্তরে পতনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না।
    শীর্ষস্থানীয়-10টি বিকল্প মুদ্রার কথা বলতে গেলে, মূলধন নিবেশের রেখচিত্রের কথা বিচার করে দেখা যাচ্ছে যে তারা ক্রমশঃ 1 নং ডিজিটাল মুদ্রার কাছে জমি হারিয়ে ফেলছে। এইভাবে, কেবলমাত্র Bitcoin গত 12 মাসে তার ক্রমাগত বৃদ্ধি দেথাতে পেরেছে, যার ফলে এটি সমগ্র বাজারের মূলধনী বিনিয়োগের 41% থেকে 66% অংশভাগ বৃদ্ধি করেছে। অন্য ক্রিপ্টোমুদ্রাগুলির অংশভাগ হয় হ্রাস পেয়েছে, অথবা বড় জোর, একই স্তরে রয়েছে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ যেমন উপরে পূর্বাভাস করা হয়েছে, ওসাকা শীর্ষবেঠকের চূড়ান্ত দিনে ইউএস রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের রাষ্ট্রপতি জিং জিংপিয়ের বৈঠকে এই বাণিজ্য যুদ্ধের কোন শেষ হয় নি। নেতারা কেবলমাত্র শত্রুতায় বিরাম দেওয়া এবং "পারস্পরিক সম্মান এবং সমতা"-র ভিত্তিতে বাণিজ্য এবং অর্থনৈতিক আলাপ-আলোচনা শুরু করার বিষয়ে সম্মত হয়েছেন।

 

-রোমান বাটকো, NordFX

 

-বিজ্ঞপ্তিঃ এই লেখনীগুলিকে আর্থিক বাজারে লেনদেন করার জন্য বিনিয়োগ বা নির্দেশিকার জন্য সুপারিশ হিসাবে গণ্য করা উচিত হবে নাঃ এগুলি শুধুমাত্র তথ্যমূলক উদ্দেশ্যে করা হয়েছে। আর্থিক বাজারে ট্রেডিং ঝুঁকিপূ্র্ণ এবং এতে গচ্ছিত অর্থের সম্পূর্ণ ক্ষতি হতে পারে।  


« বাজার বিশ্লেষণ ও সংবাদ
প্রশিক্ষণ
গ্রহণ করুন
মার্কেটে নতুন? ব্যবহার করুন “শুরু করা যাক” বিভাগটি।
প্রশিক্ষণ শুরু করুন
আমাদের অনুসরণ করুন (সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে)